• কবুতরের পোলাও


    উপকরণ : পোলাওয়ের চাল ১ কেজি, কবুতর ৬টি, ঘি আধা কাপ, তেল ১ কাপ, আদা বাটা ২ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ, পোস্তদানা বাটা ২ টেবিল চামচ, বাদাম বাটা ২ টেবিল চামচ, টক দই আধা কাপ, মিষ্টি দই সিকি কাপ, দুধ ১ কাপ, পেঁয়াজ বাটা সিকি কাপ,

    বিস্তারিত পড়ুন...

আস্ত মুরগির রোস্ট


উপকরণ: গোটা মুরগি- দেড় কেজি (চামড়া সহ), গাজর- ২টা, আলু-২টা, রসুন- একটা গোটা, অলিভ অয়েল-১/২ কাপ, লবণ ও সামান্য বিট লবণ- পরিমান মতো, টাটকা গুঁড়ো করা গোলমরিচ- স্বাদ মতো, কমলার রস- ১/৪ কাপ, এক গোছা থাইম, রোজমেরি, তেজ পাতা, সেজ বা সব হার্বের মিশেল এক গুচ্ছ। তাজা না পেলে

বিস্তারিত পড়ুন...

ইলিশ মাছের রোস্ট


উপকরণ : ইলিশ মাছ ১টি, পেঁয়াজ বাটা ১ কাপ, কাঁচামরিচ কাটা ৪-৫টি, মরিচ গুঁড়া ১ চা চামচ, সয়াবিন তেল আধা কাপ, লবণ পরিমাণমতো, আদা বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, পেঁয়াজ বেরেস্তা।

প্রস্তুত প্রণালি : মাছ টুকরা করে কেটে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। চুলার পাত্রে তেল দিন। তেল গরম হলে বাটা পেঁয়াজ দিন, মরিচ গুঁড়া, লবণ, আদা

বিস্তারিত পড়ুন...

পাঁচমিশালি মসালা স্যুপ


উপকরণঃ তেল ৩ টেবিল-চামচ, পেঁয়াজ একটা, হাড়ছাড়া মুরগির মাংস ১ কাপ লম্বা টুকরা, বেবি কর্ন টুকরা ১ কাপ, গাজর টুকরা ১ কাপ, টমেটো লম্বা টুকরা ১টা, আদাকুচি ১ চামচ, রসুনকুচি ১ চা-চামচ, কাঁচামরিচ ১ টেবিল-চামচ, চিংড়ির কুচি বড় বড় আধা কাপ, ভিনেগার ৩ টেবিল-চামচ, লেবুর রস ২ টেবিল-চামচ, পানি ৪ কাপ, থাইপাতা ২-৩টা, লেবুর পাতা ৪টা,লবণ

বিস্তারিত পড়ুন...

ভাপা পিঠা


উপকৱনঃ চালের গুঁড়ো ৪ কাপ, লবণ আন্দাজমতো, নারকেল কুরানো আধা কাপ, খেজুর গুড় ১ কাপ।


প্রনালীঃচালের গুঁড়োতে লবণ ও পানি মেশান। এমন

বিস্তারিত পড়ুন...

গ্যাসের চুলাতে প্রন তন্দুরি!


উপকরন: চিংড়ি মাছ – ৫০০ গ্রাম, ঘি বা মাখন – ২ চা চামচ, টক দই – ২ চা চামচ, আদা বাটা – ১ চা চামচ, রসুন বাটা – ১ চা চামচ, দারচিনি গুঁড়া – অল্প, বড় এলাচ – ১ টি, জিরা গুঁড়া – ১ চা চামচ, ধনে গুঁড়া – ১ চা চামচ

বিস্তারিত পড়ুন...

গমের আটার লাড্ডু


উপকরণঃ ১ কাপ গমের আটা ,১/২ কাপ সুগার, ১/৩ কাপ ঘি, ৮ পিস কাজু , ১০ পিস পেস্তা, ১২ পিস বাদাম , ১/২ চ়া চামচ দারুচিনি গুড়া।

প্রণালীঃ গমের আটা ভালো করে রোস্ট করতে হবে একটু ব্রাউন কালার হলেই রোস্ট হই যাবে খেআল রাখতে হবে যাতে নিচে পুড়ে না যাই। সুগার ও সব বাদাম গুলি ভালো করে গুড়া করে নিতে হবে. কেও

বিস্তারিত পড়ুন...

কিমা স্যান্ডউইচ


উপকরণঃ মাংসের কিমা – ২০০ গ্রাম, ছোটো সাইজের পেঁয়াজ – ২টো, আদা বাটা – ১ চা চামচ, মরিচ বাটা – ১ চা চামচ, শুকনা মরিচ গুঁড়ো – ১ চা চামচ, সামান্য হলুদ, সাদা তেল – আড়াই চামচ, ধনেপাতা কুচোনো, নুন – আন্দাজমতো, মাখন – ৮ চা চামচ, পাঁউরুটি

বিস্তারিত পড়ুন...

মার্বেল কেক


উপকরণঃ ময়দা - ১/২ কাপ, ডিম - ৪টি, তেল - ১ কাপ, চিনি - ১ কাপ, বেকিং পাউডার - ১ চা চামচ, কোকো পাউডার - ১/২ কাপ, ভ্যানিলা - ১/২ চা চামচ, গুড়া দুধ: ১ টেবিল চামচ।

বিস্তারিত পড়ুন...

ছানার পুডিং(বড়দিন স্পেশাল)


উপকরণ : ছানা এক কাপ, ডিমের সাদা অংশ (দুটি ডিমের), গুঁড়ো দুধ- আধা কাপ, চিনি-আধা কাপ, পানি-আধা কাপ, এলাচগুঁড়া চা চামচের চার ভাগের এক ভাগ ও পাকা আমের টুকরা (ছোট ছোট) দেড় কাপ।

প্রণালী : আম ছাড়া ওপরের সব উপকরণ একসঙ্গে

বিস্তারিত পড়ুন...

ওভেন ছাড়াই তৈরি করুন ভ্যানিলা-বাটার কেক!(বড়দিন স্পেশাল)

 


উপকরণঃ ১/২ কাপ আনসল্টেড বা লবণ বিহীন মাখন, ১/২ কাপ সাদা গুঁড়ো করা চিনি বা আইসিং সুগার, ২ টি ডিম, ১ চা চামচ ভ্যানিলা এসেন্স, ১ কাপ ময়দা, ১/৪ চা চামচ লবন, ১ চা চামচ বেকিং পাউডার, ২ টেবিল চামচ গুঁড়ো দুধ, গরম পানি ৩ টেবিল চামচ, ২ টেবিল চামচ চিনি

মেশানো পানি।

প্রণালী :
ব্যাটার তৈরির প্রক্রিয়া-ঃএক সাথে ময়দা এবং বেকিং পাউডার মিশিয়ে চালুনি দিয়ে ছেঁকে নিন। কোন ময়লা যদি থেকে থাকে তবে তা পরিষ্কার হয়ে যাবে।একটা এগ হুইস্কার অথবা কাঁটা চামচ দিয়ে দুই মিনিট ধরে মাখন ফেটিয়ে ক্রিম করে ফেলুন। আস্তে আস্তে চিনি ঢেলে আরও দুই মিনিট ফেটাতে থাকুন। চিনিটা গুঁড়োর করে নিলে কাজে সুবিধা হবে। এবার ডিম এবং ভ্যানিলা এসেন্স দিয়ে ততোক্ষণ ধরে ফেটাতে থাকুন যতক্ষণ পর্যন্ত না তা ফোমের মতো হয়ে আসে। এবার গুঁড়ো দুধটাকে গরম পানিতে গুলে ফেটানো ডিম, চিনি ও মাখনের ফোমের মধ্যে ঢেলে দিয়ে আরও কয়েক বার ফেটান।এই মিশ্রণটিতে মিশানো ময়দা ও বেকিং পাউডার ঢেলে দিন এবং হালকা হাতে মিশিয়ে ব্যাটার তৈরি করুন। খেয়াল রাখবেন এতে যেন কোন ময়দার ডেলা না থাকে।কেক বানানোর জন্য সমতল গোল একটি বাটি নিন। নিতে পারেন চৌকো কেক টিনও। পরিষ্কার একটা কাগজ নিয়ে, এর গায়ে মাখনের হাল্কা প্রলেপ দিয়ে দিন। একে বাটির মাপে গোল করে কেটে নিয়ে বাটিটাতে সমানভাবে বিছিয়ে নিন। এতে করে কেকটি হয়ে গেলে বাটি থেকে কেক বের করতে আর কষ্ট হবে না। টিনের গায়েও ভালো করে মাখন মাখিয়ে দিন।এখন ব্যাটারটি গ্রিস দেওয়া বাটিটিতে ঢেলে দিন। খেয়াল রাখবেন বাটিতে ব্যাটারটি সমানভাবে ছড়ানো থাকে, কোন সাইডে উচু নিচু না হয়।

ভেন ছাড়া কেক বেকিং-এর প্রক্রিয়াঃওভেন ছাড়া কেক বেক করা আহামরি কঠিন কোনো কাজ নয়। আসুন জেনে নেই উপায়টা-প্রথমে একটি খালি বড় গভীর গর্তের সসপ্যান নিন। তলা ভারী সস প্যান হতে হবে। খেয়াল রাখবেন সসপ্যানটি যেন একদম শুকনা থাকে। যদি এতে হালকা পরিমাণেরও তেল বা পানি রয়ে যায় তবে তা থেকে ধোঁয়ার সৃষ্টি হবে।এখন এই সসপ্যানের মাঝে একটা স্তর পরিষ্কার শুকনো বালি ছড়িয়ে দিন। এটা আপনার সস প্যানকে পুড়ে যাওয়ার হাত থেকে বাঁচাবে। আর বালি অল্পতেই তৈরি হয় বলে অনেকটা তাপমাত্রা তৈরি হবে। বালি ছাড়াও করা সম্ভব। সেক্ষেত্রে চুলায় একটা তাওয়া বসিয়ে তারপরে সসপ্যান রাখুন। যেভাবে পোলাও- বিরিয়ানী দমে দেয়া হয় অনেকটা সেভাবেই। সস প্যানের মাঝখানে ছোট্ট একট র‍্যাক অথবা স্ট্যান্ড বসান। সসপ্যানটিতে এমন একটি ঢাকনা দিয়ে আটকে দিতে হবে যেন এটা থেকে কোন বাতাস চলাচল করতে না পারে। এবার সসপ্যানটিকে চুলায় সর্বোচ্চ আঁচে ৫ মিনিটের জন্য রাখুন। কেকটাকে প্রিহিটে দেওয়ার জন্য এ কাজটি করলাম আমরা।সসপ্যানটির ঢাকনা সরিয়ে ফেলুন। খুব সাবধানে কাজটি করতে হবে কারণ এ সময় সসপ্যানটি খুব গরম থাকবে। এখন কেকের ব্যাটার রাখা বাটিটাকে সাবধানে স্ট্যান্ডের উপর বসিয়ে দিন। ঢাকনা দিয়ে সসপ্যানটিকে ঢেকে দিয়ে কেকটিকে বেক করতে দিন। প্রথম ৫ মিনিট চুলার জ্বাল পুরো দমে বাড়ানো থাকবে, আর পরের ২০ মিনিটের জন্য চুলার জ্বাল মাঝারী আঁচে থাকবে। এ পদ্ধতি ৮ ইঞ্চি ব্যাসের কেকের জন্য প্রযোজ্য। কেক যদি এর চেয়ে বড় হয় তবে �ize: medium;">কেকটি ৫/৬ ঘণ্টা পর ভালোমত ঠাণ্ডা হয়ে এলে এর উপরে চিনি গোলানো পানি ছিটিয়ে দিন। চাইলে হুইপড ক্রিম, চকোলেট শেভিং, বাদাম কুচি ও চেরি দিয়ে সাজাতে পারেন ।ছুড়ি দিয়ে কেটে পরিবেশন করুন ওভেন ছাড়া বেক করা মজাদার “পারফেক্ট ভ্যানিলা বাটার কেক”।